ব্রেকিং

x

অক্সফোর্ড ভ্যাকসিনের তথ্য চুরির চেষ্টা

শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০ | ৫:৫৪ অপরাহ্ণ |

অক্সফোর্ড ভ্যাকসিনের তথ্য চুরির চেষ্টা
ফাইল ছবি

ব্রিটিশ ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান অ্যাস্ট্রাজেনেকার সিস্টেম হ্যাক করার চেষ্টা করেছে উত্তর কোরিয়ার হ্যাকাররা। হ্যাকাররা ওই প্রতিষ্ঠানের বেশ কজন কর্মীর তথ্য হাতিয়ে নিতে চেয়েছিল, যাঁদের মধ্যে অনেকে কোভিড-১৯-এর ওপর গবেষণা করছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দুজন ব্যক্তির বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ তথ্য দিয়েছে।

হ্যাকাররা লিংকডইন ও হোয়াটসঅ্যাপে অ্যাস্ট্রাজেনেকার কর্মীদের ভুয়া চাকরির প্রস্তাব দিয়ে বার্তা পাঠায়। এরপর তারা প্রস্তাবিত চাকরিতে কর্মীর কাজের ধরন বোঝায়—এমন কিছু ফাইল পাঠায়, যেসব ফাইলে মূলত ভুক্তভোগীর কম্পিউটার হ্যাক করার কোড ডিজাইন করা ছিল। একবার সেসব কাগজ কম্পিউটারে ডাউনলোড করলেই সে কম্পিউটারের নিয়ন্ত্রণ চলে যায় হ্যাকারের হাতে।

কিছু নির্দিষ্ট মানুষকে লক্ষ্য করে এই হ্যাকিং চালানো হয়েছে। একটি সূত্রের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছে, এসব মানুষের সবাই কোনো না কোনোভাবে কভিড-১৯ গবেষণার সঙ্গে যুক্ত। তবে প্রয়োজনীয় তথ্য নিতে হ্যাকাররা সফল হয়নি বলে ধারণা সংশ্লিষ্টদের।

জেনেভায় জাতিসংঘে উত্তর কোরিয়ার দূতের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও এ নিয়ে তাদের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। বিদেশি সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে দেশটির যোগাযোগের কোনো সরাসরি উপায় নেই। তবে অতীতে সাইবার হামলার নানা অভিযোগ সবসময়ই অস্বীকার করে এসেছে উত্তর কোরিয়া। আস্ট্রাজেনেকার টিকা প্রস্তুতকারকেরাও এ নিয়ে রয়টার্সের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সূত্র জানিয়েছে, আস্ট্রাজেনেকায় হ্যাকিংয়ে যেসব পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়েছে, মার্কিন কর্মকর্তা এবং সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা সেগুলো উত্তর কোরিয়ার দিকে ইঙ্গিত করে বলেই জানিয়েছেন। এতদিন এসব হ্যাকিংয়ের লক্ষ্য ছিল প্রতিরক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং সংবাদমাধ্যম। কিন্তু সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে কভিড-১৯ সংক্রান্ত গবেষণা আক্রমণের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে বলে জানিয়েছেন তদন্তে জড়িত তিন কর্মকর্তা।

করোনার টিকা গবেষণার গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হাতিয়ে নিতে পারলে তা ব্যবসার উদ্দেশ্যে ব্যবহার, ব্ল্যাকমেইল বা কোনো বিদেশি সংস্থাকে কৌশলগত সুবিধা পাইয়ে দেওয়ায় ভূমিকা রাখতে পারে। মাইক্রোসফট জানিয়েছে, এই সপ্তাহেই তারা দুটি উত্তর কোরীয় হ্যাকিং গ্রুপকে বিভিন্ন দেশে টিকার গবেষণাকে লক্ষ্য করে হামলা চালাতে দেখেছে। কোনো নির্দিষ্ট গ্রুপের নাম না বললেও মাইক্রোসফট জানিয়েছে গ্রুপগুলো একইভাবে ‘ভুয়া কাজের প্রস্তাব দিয়ে ম্যাসেজ আদানপ্রদান করেছে’।

দক্ষিণ কোরিয়ার আইনপ্রণেতারা শুক্রবার জানিয়েছেন দেশটির গোয়েন্দা সংস্থা একই ধরনের কয়েকটি হ্যাকিং প্রচেষ্টা বানচাল করে দিয়েছে। এর আগে ইরান, চীন ও রাশিয়ার হ্যাকাররা এ বছরের বিভিন্ন সময়ে টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো, এমনকি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাতেও হ্যাক করার চেষ্টা চালিয়েছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স। তবে তেহরান, বেইজিং ও মস্কো এসব অভিযোগই অস্বীকার করেছে।

Development by: webnewsdesign.com