ব্রেকিং

x

আইপিএলে এক ম্যাচে সেঞ্চুরি ও ৫ উইকেট চান সাকিব

সোমবার, ০৫ এপ্রিল ২০২১ | ৪:২৫ অপরাহ্ণ |

আইপিএলে এক ম্যাচে সেঞ্চুরি ও ৫ উইকেট চান সাকিব
ফাইল ছবি

আইপিএল খেলতে গত ২৭ মার্চ ভারতে গেছেন সাকিব আল হাসান। কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ শেষে কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে অনুশীলনও শুরু করেছেন বাংলাদেশের এ তারকা অলরাউন্ডার।

চেন্নাইয়ে আগামী রোববার সানরাইজার্স হায়দরাবাদের মুখোমুখি হয়ে আইপিএলে এবারের মৌসুম শুরু করবে সাকিবের দল কলকাতা। এবার আইপিএলে নিজের লক্ষ্যের কথা ক্রিকইনফোর সঙ্গে আলাপচারিতায় জানিয়েছেন সাকিব। একটি রেকর্ডও ভাঙতে চান তিনি।

‘র‍্যাপিড ফায়ার’ প্রশ্নোত্তরে সাকিবের মুখোমুখি হয়েছিল ক্রিকেটভিত্তিক এ সংবাদমাধ্যম। এবার আইপিএলের নতুন মৌসুমে কোন দলের বিপক্ষে খেলতে মুখিয়ে আছেন—সাকিবের কাছে এটা ছিল প্রথম প্রশ্ন।

উত্তরে বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের কথা বলেন সাকিব, ‘মুম্বাই ইন্ডিয়ানস।’ রোহিত শর্মার দল এবার আইপিএলে হ্যাটট্রিক শিরোপার সন্ধান করবে। আইপিএলে মুম্বাই-ই সবচেয়ে সফল ফ্র্যাঞ্চাইজি। পাঁচবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে তারা।

আইপিএলে এবার শক্তিশালী দল গঠন করেছে কলকাতা। তবে শাহরুখ খানের ফ্র্যাঞ্চাইজি দলের বোলিং বিভাগ নিয়ে বেশি আশাবাদী সাকিব। তাঁর দলের সবচেয়ে শক্তিশালী দিক জানতে চাওয়া হলে সাকিব বলেন, ‘সব বিভাগই আমরা ভালোভাবে সাজিয়েছি। তবে এবার শিরোপা জেতাতে পারে আমাদের বোলিং বিভাগ। আমাদের বোলিং বিভাগ খুব ভালো।’

প্যাট কামিন্স, লকি ফার্গুসন, আন্দ্রে রাসেল ছাড়াও পবন নেগি, হরভজন সিং ও কমলেশ নাগরকোটিরা আছেন কলকাতায়। বোলিংয়ে সাকিব নিজেও নাইটদের বড় অস্ত্র।

আইপিএলে এই কলকাতা দিয়ে পথচলা শুরু সাকিবের। এ দলে তিনি কাটিয়েছেন ছয় বছর। শিরোপাও জিতেছেন। ২০১৮ সালে কলকাতা ছেড়ে সানরাইজার্স হায়দরাবাদে যোগ দিয়েছিলেন কলকাতা তাঁকে ছেড়ে দিয়েছিল বলেই।

সেখানে দুই বছর কাটানোর পর এবার নিলামে সাকিবকে ৩ কোটি ২০ লাখ রুপিতে ফিরিয়ে আনে কলকাতা। এবার আইপিএলে ব্যক্তিগত লক্ষ্যের কথা জিজ্ঞাসা করতেই সাকিব বলেন, ‘দলের জয়ে অবদান রাখতে চাই।’ কোনো রেকর্ড ভাঙার লক্ষ্য আছে কি না—এ প্রশ্নে সাকিবের উত্তর, ‘একই ম্যাচে সেঞ্চুরি ও ৫ উইকেট নেওয়া।’

আইপিএলে এক ম্যাচে সেঞ্চুরি ও ৫ উইকেট নেওয়ার কীর্তি নেই। ২০১২ সালে রবীন্দ্র জাদেজা ২৯ বলে ৪৮ রানের পাশাপাশি ইনিংসে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন। আইপিএলে এটাই এখন পর্যন্ত সেরা অলরাউন্ড পারফরম্যান্স। বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ও ধনী এই ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে দেশ-বিদেশের নানা তারকা খেলে থাকেন।

ড্রেসিংরুম ভাগ করে নেওয়ায় অনেক কিছু শেখার সুযোগ থাকে। গত মৌসুমের পর কী শিখেছেন, এ প্রশ্নের উত্তরে সাকিব বলেন, ‘আইপিএলে প্রতিনিয়তই অনেক কিছু শেখা যায়।’

ইংল্যান্ড পেসার জফরা আর্চারকে এবার খেলতে মুখিয়ে ছিলেন সাকিব। কিন্তু চোটে পড়ায় এবার তাঁকে পাচ্ছে না রাজস্থান রয়্যালস। আর্চার না থাকলেও অস্ট্রেলিয়ার তারকা পেসার কামিন্স তো আছেন। যদিও কলকাতায় কামিন্স তাঁর সতীর্থ, অন্তত নেটে খেলার সুযোগ তো মিলবে। কোনো বোলারকে খেলার প্রহর গুনছেন—এ প্রশ্নের উত্তরে সাকিব বলেন, ‘জফরা আর্চারকে খেলতে চাই। কিন্তু সে চোটে পড়েছে। তবে প্যাট কামিন্স আছে, সে আমাদের দলে। তাকে নেটে খেলতে পারব।’

সাকিবকে নিয়ে বিতর্ক কম নেই। টি-টোয়েন্টি খেলোয়াড় হিসেবে তাঁকে লোকে কী নিয়ে সবচেয়ে বেশি ভুল বুঝে থাকে, এ প্রশ্নের উত্তরও দিয়েছেন তিনি, ‘লোকে তো অনেক কিছুই ভাবে। কিন্তু আমি সেসব নিয়ে ভাবি না। তারা কী ভাবে, সেটা আমি জানি না।’ সাকিব জানিয়েছেন, আইপিএলে কোনো ম্যাচ তিনি বারবার দেখেন না। এ টুর্নামেন্টে নিজের সেরা পারফরম্যান্স হিসেবে ২০১৪ সংস্করণে ২২৭ রান ও ১১ উইকেট নেওয়ার কথাই বলেছেন বাংলাদেশের সেরা এই তারকা।

Development by: webnewsdesign.com