ব্রেকিং

x

আলোচনায় অপূর্ব-ফারিন অভিনীত নাটক (ভিডিও)

শুক্রবার, ০৬ মে ২০২২ | ৬:৫৭ অপরাহ্ণ |

আলোচনায় অপূর্ব-ফারিন অভিনীত নাটক (ভিডিও)
সংগৃহীত ছবি

আরটিভির সাত দিনব্যাপী ঈদ অনুষ্ঠানমালায় ঈদের প্রথম দিন রাত ৯ টা ৩০ মিনিটে প্রচার হয় একক নাটক ‘একটা নির্জন দুপুর চাই’। রহমান মোস্তাফিজ পাভেলের রচনা ও সৈয়দ শাকিলে পরিচালনায় নাটকটিতে অভিনয় করেন জনপ্রিয় অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্ব, অভিনেত্রী তাসনিয়া ফারিন, প্রাণ রায়, নরেশ ভুইয়া। এছাড়া আরও অনেকেই অভিনয় করেন।এদিকে নাটকটি প্রচার হওয়ার পর থেকেই বেশ আলোচনায় চলে আসে। ৪ এপ্রিল বুধবার আরটিভির নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে নাটকটি প্রকাশ করা হয়। এরপর আলোচনা আরও বেশি বাড়তে থাকে। দর্শকরা জানাতে থাকেন তাদের মন্তব্য। অনেকে মন্তব্য করেন যে অপূর্বের এ বছরের সেরা অভিনয় এই নাটকেই করেছেন। অন্যদিকে ফারিনেও অভিনয়েও মুগ্ধ হয়েছেন।

দুই দিনে নাটকটির ভিউ হয়েছে প্রায় ৫ লাখ, কমেন্টবক্সে দর্শকের মন্তব্য পড়েছে প্রায় ২২শ। নাটকটিতে লাইক প্রায় ১৯ হাজারের উপরে।নাটকের গল্পে দেখা যায়, রংবে-রঙের ঢাকা শহরে সুমন একজন চিরচেনা বেকার যুবক। একটার পর একটা ইন্টারভিউ দিয়েই যাচ্ছে সুমন, চাকরী হচ্ছে না কোথাও। চিলেকোঠার বাসা ভাড়া তিন মাস বাকি, বাড়িওয়ালা যেকোন সময় বাসায় তালা দেবে। দোকানের বাকি পরিশোধ করতে না পারায় রান্নার চুলা বন্ধ। গ্রামের বাড়িতে মা অসুস্থ, টাকা পাঠাতে হবে।

এরকম এক ক্রাইসিসে সুমনের একমাত্র টিউশনি টাও চলে যায়। চারদিকে শুধু অন্ধকার। শত হতাশার মাঝেও সুমনের একমাত্র রিলিফ একটা ফোনকল। নাম পরিচয়হীন এক মেয়ে তাকে প্রতিদিন ফোন দেয়, তাকে নতুন করে স্বপ্ন দেখায়। কথার শ্রোতে সুমন প্রতিদিন লাস ভেগাস, আটলান্টা, শিকাগো, লিভারপুর টু চানখারপুল সব জায়গায় ঘুরে আসে। মজার ব্যাপার হচ্ছে, সুমন মেয়েটির নাম পর্যন্ত জানে না। বেশ কয়েকবার জিজ্ঞেস করেছে, মেয়েটি এড়িয়ে গেছে। এমন কি সুমন কখনো মেয়েটিকে ফোন দিতে পারে না, মেয়েটিই তাকে ফোন দেয়।

হঠাৎ একদিন সুমনের সবকিছু চেঞ্জ হয়ে যায়, স্বপ্নের মতো। ঘরের সামনের ময়লা উপচানো বাকেট পরিস্কার হয়ে গেছে, ছাদে গাছের ডালে অবহেলায় শুকা দেয়া ভেজা কাপড়গুলো রশিতে দুলছে বাতাসে। তিন মাসের বকেয়া বাসা ভাড়া পরিশোধ হয়ে গেছে। বহু কাঙ্খিত সেই চাকরীটাও পেয়ে গেল। কোন রহস্যের ছোয়ায় এসব হলো, ভেবে পায় না সুমন। কিন্তু খুশিতে সুমন সেই মেয়েটিকে ফোন দিয়ে ফেলে, শুরু হয় নতুন গল্প।

Development by: webnewsdesign.com