ব্রেকিং

x

‘গলুই’ শেষ করে যে অভিজ্ঞতা নিয়ে ঢাকায় ফিরলেন শাকিব-পূজা

রবিবার, ০৭ নভেম্বর ২০২১ | ৪:০৫ অপরাহ্ণ |

‘গলুই’ শেষ করে যে অভিজ্ঞতা নিয়ে ঢাকায় ফিরলেন শাকিব-পূজা
সংগৃহীত ছবি

দর্শকদের অফুরন্ত ভালোভাসা ও নদীপাড়ে মানুষের যাপিত জীবনের নানা অভিজ্ঞতা নিয়ে ‘গলুই’ ছবির টানা শুটিং শেষ করে জামালপুর থেকে ঢাকায় ফিরলেন দেশের শীর্ষ নায়ক শাকিব খান। ফিরেছেন ছবিটির নায়িকা পূজা চেরিও। গতকাল এক মাস ছয়দিন পর ঢাকায় ফিরেন শাকিব । মাঝে কয়েক ঘন্টার জন্য ঢাকায় এসেছিলেন তিনি।

ছবিটি পরিচালনা করছেন এস এ হক অলিক। রোববার তিনি জানান, শাকিব খান ও পূজার শুটিং পার্ট শেষ। তারা গতকাল শুটিং শেষ করে ঢাকায় ফিরেছেন। তবে তাদের শুটিং পার্ট শেষ হলেও বাকি রয়েছে আরও তিন দিনের শুটিং। এই তিন দিনের দৃশ্যধারণ হবে জামালপুরে। শুটিংয়ে থাকবেন সূচরিতা ও সুভ্রতসহ অনেকেই।

২০২০-২১ অর্থবছরে সরকারি অনুদান পাওয়া ছবি ‘গলুই’। প্রয়োজনা করছেন খোরশেদ আলম খসরু। তিনিও জানান, শাকিব-পূজার শুটিং পার্ট শেষ করে ঢাকায় ফেরার খবর।

গলুইয়ের শুটিং পার্ট শেষ করে ঢাকায় ফেরার কথা জানিয়েছেন শাকিব খানও। আজ ঢাকাই ছবির এ সুপারস্টার বলেন, ‘গতকাল টাঙ্গাইল থেকে ঢাকায় ফিরলাম। টানা এক মাসের জার্নি ছিলো গলুয়ের। নানা অভিজ্ঞতার মধ্য এ জার্নি শেষ হলো।’

ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা ও বিস্তীর্ণ এক জনপদের মানুষের জীবনের গল্পে নির্মিত হচ্ছে সিনেমাটি। সাধারণত সরকারি অনুদান পাওয়া ছবিগুলো নিরবেই নিভৃতে শুটিং হয়ে থাকে। কিন্তু গলুই ছবিতে শাকিব খান থাকায় দেখা গেলো ভিন্ন চিত্র। এর আগে অনুদানের ছবি নিয়ে এতো আলোচনা হতে দেখা যায়নি।

গলুইয়ে শাকিব খান অভিনয় করেছেন ‘লালু’ চরিত্রে। আর পূজা চেরি ‘মালা’ চরিত্রে।

ছবিটির শুটিং টানা এক মাসেরও বেশি সময় জামালপুর ও টাঙ্গাইলে থাকতে হয়েছে শাকিব খানকে। নৌকাবাইচ গলুই ছবির গল্পের একটি অংশ। নৌকাবাইচের শুটিংয়ের প্রথম দিন সকাল থেকেই যমুনা নদীর ধার কানায় কানায় মানুষে পূর্ণ ছিল। যতদিন শুটিং করেছেন ততদিন হাজার হাজার মানুষের মাঝেই শুটিং করতে হয়েছে তাকে।

এ অভিজ্ঞতার কথা জানিয়ে শাকিব বলেন, প্রথম দিকে তো শুটিংয়ে মানুষের উপস্থিতি দেখে ভয়ে পেয়ে গিয়েছিলাম। আমার ২১ বছরের অভিনয়জীবনে শুটিংয়ে এত মানুষের ভিড় দেখা হয়নি। ‘

নৌকা বাইচের বিষয়টি শাকিব খান এতোদিন টেলিভিশনে দেখেছেন আর খবরের কাগজে পড়েছেন। কিন্তু বাস্তবে স্বচক্ষে কখনোই নৌকাবাইচ দেখেননি শাকিব খান। তাই নৌকাবাইচের অংশটুকু তাকে দারুণভাবে আকর্ষণ করেছে বলে জানান ঢাকাই ছবির এই তারকা অভিনেতা।

তিনি বলেন, ‘শুটিংয়ের আগে গল্প শুনতে বসে জানতে পারি, ছবিতে নৌকাবাইচের দৃশ্য আছে। ভাবলাম, নৌকাবাইচ আমাদের গ্রামবাংলার একটা ঐতিহ্য। নদী ভরাট হয়ে যাওয়ায় অনেক জায়গা থেকে হারিয়ে গেছে এই খেলা। নতুন প্রজন্মের অনেকেই এই খেলা সম্পর্কে জানেন না। তাদের কাছে নৌকাবাইচকে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দিতে পারে এই সিনেমা।’ যখন সিদ্ধান্ত নিলেন সিনেমাটিতে অভিনয় করবেন, তখন থেকেই বিভিন্ন মাধ্যম থেকে নৌকাবাইচ সম্পর্কে আরও ভালোভাবে জানার চেষ্টা করেছেন, জানালেন এই নায়ক।

অভিজ্ঞতার ঝুলি পূজারও ভরপুর। শাকিবের বিপরীতে প্রথমবার কাজ করে ফিরেছেন দারুণ সব সুখ স্মৃতি নিয়ে। পূজা চেরি বলেন, ‘ছবিটির শুরু থেকেই এক্সসাইটেড ছিলাম। কারণ এই ছবিতে আমি শাকিব ভাইয়ের বিপরীতে কাজ করছি। তিনি দেশের শীর্ষ নায়ক। শুটিংয়ে তাকে দেখতে হাজার হাজার মানুষ দূর দূরান্ত থেকে ছুটে এসেছে। শুটিংয়ের তার থেকে অনেক কিছু শেখাও হয়েছে আমার।’

নৌকার গলুই থেকেই সিনেমার নামকরণ করা হয়েছে গলুই। গলুই যেহেতু নৌকার গুরুত্বপূর্ণ অংশ, তাই এ গলুইয়ের সঙ্গে জীবন,সম্পর্ক, পরিবার, রাষ্ট্রকে মিলিয়ে তৈরি করা হয়েছে চিত্রনাট্য।

‘গলুই’ সিনেমার মাধ্যমে দীর্ঘদিন পর সিনেমার গানে ফিরেছেন হাবিব ওয়াহিদ। তার সুর, সংগীত ও কণ্ঠে দুটি গান থাকছে সিনেমায়। যার একটি লিখেছেন এস এ হক অলিক ও আরেকটি লিখেছেন সোহেল আরমান। – সমকাল

Development by: webnewsdesign.com