ব্রেকিং

x

দুই বছর পর নির্বাচন : মিয়ানমারের জান্তাপ্রধান

রবিবার, ০১ আগস্ট ২০২১ | ৭:০৫ অপরাহ্ণ |

দুই বছর পর নির্বাচন : মিয়ানমারের জান্তাপ্রধান
ছবি: সংগৃহীত

ছয় মাস আগে অভ্যুত্থানের মাধ্যমে অং সান সু চি সরকারকে উৎখাতের পরদিন মিয়ানমারের সামরিক জান্তা জরুরি অবস্থা জারি করে এক বছরের মধ্যে নির্বাচন আয়োজনের ঘোষণা দিলেও জান্তাপ্রধান এখন বলছেন, নির্বাচন হবে আরও দুই বছর পর।

বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদন অনুযায়ী আজ রোববার টেলিভিশনে সম্প্রচারিত ভাষণে মিয়ানমারের সেনা ও জান্তাপ্রধান মিন অং হ্লাইং বলেন, ২০২৩ সালের আগস্টের মধ্যে জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার করে বহুদলীয় জাতীয় নির্বাচনের আয়োজন করা হবে।

টেলিভিশন ভাষণে মিন অং হ্লাইং বলেন, ‘আমরা ২০২৩ সালের আগস্টের মধ্যে জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার করে নেব। আর ওই সময়ের মধ্যে কোনো ধরনের ব্যর্থতা ছাড়াই বহুদলের অংশগ্রহণে একটি নির্বাচনের আয়োজন করার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি আমি।’

এর পাশাপাশি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর জোট অ্যাসোসিয়েশন অব সাউথইস্ট এশিয়ান নেশনস বা আসিয়ান মনোনীত যে কোনো বিশেষ প্রতিনিধির সঙ্গে তারা কাজ করতে ও সংলাপে বসতে প্রস্তুত বলেও জানিয়েছেন জান্তাপ্রধান মিন অং হ্লাইং।

মিয়ানমারে জান্তা ও বিরোধীদের মধ্যে আলোচনার ক্ষেত্র তৈরি করতে একজন বিশেষ প্রতিনিধি চূড়ান্ত করার উদ্যোগ নিয়েছে আসিয়ান। এ লক্ষ্যে আগামীকাল সোমবার বৈঠকে বসছেন আসিয়ান জোটভুক্ত ১০টি দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা।

এদিকে জান্তার দেওয়া নাম ‘স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেশন কাউন্সিল’ বা ‘রাষ্ট্রীয় প্রশাসনিক পরিষদ’ পৃথক এক বিবৃতি দিয়ে ঘোষণা করেছে, এ জন্য জান্তাপ্রধান মিন অং হ্লাইংকে মিয়ানমানের ‘তত্ত্বাবধায়ক সরকারের’ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

ফেব্রুয়ারিতে সেনাবাহিনী রাষ্ট্রক্ষমতা দখলের পর থেকে দেশটিতে অস্থিরতা চলছে। আর জান্তাবিরোধী বিক্ষোভকারীদের দমনে সামরিক সরকার ব্যাপক রক্তক্ষয়ী নিধন অভিযান শুরু করলে এ পর্যন্ত শিশু-কিশোরসহ অন্তত ৯৩৯ জনের প্রাণহানি হয়েছে।

অভ্যুত্থানের দিনেই বন্দি হন সরকারপ্রধান অং সান সু চি। তিনি এখনো বন্দি রয়েছেন। এর মধ্যেই জান্তা কর্তৃপক্ষ তার বিরুদ্ধে একের পর এক মামলা ঠুকে দিচ্ছে। তার বিরুদ্ধে হওয়া মামলা নিয়ে রাজধানী নেপিডোর একটি আদালতে সু চির বিচার চলছে।

এএস

Development by: webnewsdesign.com