ব্রেকিং

x

দেশ সেরা ব্যবসায়িক ব্যক্তিত্ব আজম জে. চৌধুরী

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯ | ৫:৪৫ অপরাহ্ণ | 11552 বার

দেশ সেরা ব্যবসায়িক ব্যক্তিত্ব আজম জে. চৌধুরী

আজম জে. চৌধুরী। নিজের মেধা, মনন এবং সৃষ্টিশীল কাজের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতিতে যুগান্তকারী ভূমিকা পালন করা এক অসামান্য ব্যক্তিত্ব। শিক্ষা-সংস্কৃতি, সামাজিক উন্নয়ন ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে দেশের উন্নয়নের জন্য যিনি নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সুখ্যাতি পাওয়া বাংলাদেশের অন্যতম বরেণ্য এই শিল্পপতি নিজেকে নিয়ে গেছেন এক অনন্য উচ্চতায়। দেশের অর্থনীতির উৎকর্ষতার পাশাপাশি মানব কল্যাণেও যার ভূমিকা প্রশংসনীয়।

আত্মপ্রচারবিমুখ এই ব্যক্তিত্ব নিজের মেধা ও শ্রম দিয়ে দেশের বিদ্যুৎ, গ্যাস, চা শিল্প, গার্মেন্টস ও ব্যাংকিং খাতকে অনন্য উচ্চতায় প্রতিষ্ঠিত করেছেন। নিজের এমন যুগান্তকারী প্রশংসনীয় কর্মকান্ডের জন্য জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বিভিন্ন সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন তিনি।

সম্প্রতি বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় লজিস্টিক্স কোম্পানি ডিএইচএল এক্সপ্রেস ও দ্য ডেইলি স্টারের যৌথ আয়োজনে ১৮তম বাংলাদেশ বিজনেস অ্যাওয়ার্ড ২০১৯ অনুষ্ঠানে দেশের সেরা ব্যবসায়িক ব্যক্তিত্ব হিসেবে নির্বাচিত এবং সম্মাননা পেয়েছেন স্বনামধন্য শিল্পপতি ইস্ট কোস্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রতিষ্ঠাতা আজম জে চৌধুরী। শুক্রবার সন্ধ্যায় ঢাকাস্থ র‌্যাডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেন হোটেলে বাংলাদেশ বিজনেস অ্যাওয়ার্ডের জাকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট শিল্পপতি আজম জে. চৌধুরীকে এই সম্মাননা প্রদান করা হয়।

এর আগেও ব্যবসায়িক এবং সামাজিক সুখ্যাতির কারণে হাঙ্গেরীয় সরকার বিশিষ্ট শিল্পপতি আজম জে চৌধুরীকে বাংলাদেশে অনারারি কনসাল অব হাঙ্গেরী নিযুক্ত করেছে। এছাড়াও দেশের অর্থনীতি, শিক্ষাক্ষেত্রে অনবদ্য ভূমিকা রাখায় একাধিক সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন তিনি। শৈশব থেকে অসম্ভব মেধাবী ছিলেন এই ব্যক্তিত্ব।

ব্যবসার পাশাপাশি আজম জে. চৌধুরী একজন গবেষক, সুলেখক ও ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব। তিনি একসময় সাংবাদিকতার সাথেও জড়িত ছিলেন। রাজনৈতিক, ব্যবসায়িক, শিপিং ও জ্বালানি সংক্রান্ত তাঁর বহু গবেষণাধর্মী লেখা দেশে ও দেশের বাইরে বিভিন্ন সংবাদপত্র ও জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। গুণী ব্যক্তিত্ব আজম জে. চৌধুরী বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অসংখ্য আন্তর্জাতিক সেমিনার ও সিম্পোজিয়ামে অংশ নিয়েছেন।

শত ব্যস্ততার মাঝেও তিনি তাঁর জন্মভূমি কুলাউড়ার জন্য সহযোগিতার হাতকে প্রসারিত রেখেছেন প্রতিনিয়ত। দেশের কল্যাণের পাশাপাশি নিজের জন্মভূমি কুলাউড়ার শিক্ষা ও আর্থসামাজিক উন্নয়নে অনবদ্য ভূমিকা রয়েছে তাঁর। উপজেলার কাদিপুরে পিতার নামে স্থাপিত মহতোছিন আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম তরাšি^ত ও বিদ্যালয়ের অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য প্রতিনিয়ত পৃষ্ঠপোষকতা করে যাচ্ছেন তিনি। তাঁর প্রতিষ্ঠান ইস্ট কোস্ট গ্রুপ ও প্রাইম ব্যাংকের বিভিন্ন শাখায় কুলাউড়ার অনেক শিক্ষিত তরুণ-তরুণীদের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছেন। ডায়াবেটিস আক্রান্ত রোগীদের জন্য কুলাউড়ায় একমাত্র আধুনিক ‘বখতুন্নেছা চৌধুরী ডায়াবেটিস হাসপাতাল’ প্রতিষ্ঠা করেছেন।

তিনি কুলাউড়া শহরে নিরাপত্তা রক্ষায় ও চুরি ছিনতাই রোধে ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির মাধ্যমে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা প্রতিস্থাপনের ব্যবস্থা করেছেন। যার সুফল কুলাউড়ার সর্বস্তরের মানুষ ভোগ করছেন। কুলাউড়ায় নিয়মিত ফ্রি স্বাস্থ্য ক্যাম্প আয়োজনের মাধ্যমে দুঃস্থ ও অসহায় মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। আইন শৃক্সখলা রক্ষার কাজে নিয়োজিত কুলাউড়া থানায় একটি পুলিশী টহল ভ্যান প্রদান করেছেন। এছাড়াও কুলাউড়ার শিক্ষা, সামাজিক ও সংস্কৃতির উন্নয়নে আজম জে চৌধুরী কাজ করে যাচ্ছেন নিরন্তর।

দেশের শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান ইস্ট কোস্ট গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান আজম জে. চৌধুরী বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় বেসরকারি ব্যাংক প্রাইম ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করেন এবং বর্তমানে তিনি এই প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন। একই সঙ্গে তিনি কনসলিডেটেড টি অ্যান্ড ল্যান্ডস কোম্পানি বাংলাদেশ লিমিটেডেরও (প্রাক্তন জেম্স ফিনলে লিমিটেড) চেয়ারম্যান ও মবিল যমুনা (এমজেএল) বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং ওমেরা পেট্রোলিয়াম লিমিটেড, ওমেরা সিলিন্ডার লিমিটেড ও ওমেরা ফুয়েল লিমিটেডের পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন।

তিনি বাংলাদেশ এনার্জি কোম্পানিজ অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট, এলপিজি অপারেটরস এ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (লোয়াব) সভাপতি, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব পাবলিকলি লিস্টেড কোম্পানিজের প্রেসিডেন্ট ও সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেডের পরিচালক এবং ২০১২ সাল থেকে বাংলাদেশ ওশিয়ান গোয়িং শিপ ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি বর্তমানে কুর্মিটোলা গল্ফ ক্লাবের অডিট ও ফাইনান্স কমিটির চেয়ারম্যান। এছাড়াও তিনি গ্রীণ ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের (২০০১-২০০৫) চেয়ারম্যান ছিলেন।

ইস্ট কোস্ট গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান আজম জে. চৌধুরীর পরিবারের অন্যান্য সদস্যরাও স্ব স্ব অবস্থানে প্রতিষ্ঠিত এবং পারিবারিক ঐতিহ্য রক্ষায় আর্থ সামাজিক, শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন। তাঁর ভাই প্রয়াত কুতুবুল আলম চৌধুরী (আলমগীর চৌধুরী নামে সর্বস্তরের মানুষের কাছে পরিচিত) ইস্ট কোস্ট গ্রুপের পরিচালক ও গ্রীণ ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের পরিচালকের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি একাধিক ব্যবসায়ী এবং সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলেন।

মানবকল্যাণে আলমগীর চৌধুরীর বিশেষ অবদান রয়েছে। তিনি ২০০৭ সালের ২৯ মার্চ মৃত্যুবরণ করেন। নিজ জন্মভূমি কুলাউড়ার কাদিপুরের মানুষের কাছে তাঁর অবদান আজও চির অম্লান।
চৌধুরী পরিবারের অন্যতম সুযোগ্য উত্তরসুরী আজম জে. চৌধুরীর দুই পুত্র তানজিল চৌধুরী এবং তানভীর চৌধুরী ও প্রয়াত আলমগীর চৌধুরীর পুত্র তানজিম চৌধুরী জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিজেদের পারিবারিক সুনাম অক্ষুণœ রেখে কাজ করে যাচ্ছেন। তাঁরা প্রবাসে পড়াশুনা শেষ করে দেশে এসে ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকাসহ তরুণদের ‘আইডল’ হিসেবে কাজ করছেন।

তানজিল চৌধুরী বর্তমানে ইস্ট কোস্ট গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচিত পরিচালক। এছাড়াও তিনি বাংলাদেশ ট্রেড সিন্ডিকেটের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রাইম ব্যাংক লিমিটেডের সাবেক পরিচালক এবং নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন।

তানভীর চৌধুরীও ইস্ট কোস্ট গ্রুপের অন্যতম পরিচালক ও ওমেরা লুব্রিকেন্টর পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন। প্রয়াত আলমগীর চৌধুরীর পুত্র তানজিম চৌধুরী ইস্ট কোস্ট গ্রুপের অন্যতম পরিচালকের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি ওমেরা পাওয়ার এন্ড এনার্জি লিমিটেডের হেড অব প্লানিং এন্ড বিজনেস ডেভলপমেন্টের দায়িত্ব পালন করছেন।

Development by: webnewsdesign.com