ব্রেকিং

x

নেপিদোতে বিক্ষোভে গুলি, গুরুতর আহত ২

মঙ্গলবার, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১ | ৪:০৯ অপরাহ্ণ |

নেপিদোতে বিক্ষোভে গুলি, গুরুতর আহত ২
সংগৃহীত ছবি

রাজধানী নেপিদোতে সামরিক অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে রাবার বুলেট ছুড়েছে পুলিশ। এছাড়া বিক্ষোভকারীদের সতর্ক করতে গুলি ছুড়েছে তারা। তবে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, রাবার বুলেট সরাসরি বিক্ষোভকারীদের ওপর চালালেও গুলি সরাসরি চালানো হয়নি।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, রাবার বুলেটে দুইজন গুরুতর আহত হয়েছে। এর আগে গতকাল সোমবার দেশটিতে সেনা শাসনের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ বিক্ষোভ হয়। এই ঘটনার পর মিয়ানমারের সেনা সরকার কয়েকটি শহরে জমায়েত নিষিদ্ধ করে কারফিউ জারি করে।

কিন্তু মঙ্গলবার কারফিউ উপেক্ষা করে দেশের সর্ববৃহৎ শহর ইয়াঙ্গুনের কেন্দ্রস্থল সুলে প্যাগোডার নিকট বিক্ষোভ করে জনতা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বিক্ষোভে হাজারো মানুষ যোগ দেন।পুলিশ বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে রাবার বুলেট ছাড়াও জলকামান এবং টিয়ার গ্যাস ছোড়ে।

সোমবার মিয়ানমারে সেনা সরকার কয়েকটি শহরে বড় জমায়েত নিষিদ্ধ করে এবং রাত্রিকালীন কারফিউ জারি করে। সেনা প্রধান মিন অং হ্লাইং ‘ কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়’ বলে বিক্ষোভকারীদের সতর্ক করেন। তিনি বিক্ষোভকারীদেরকে সরাসরি হুমকি দেননি। তবে তার বক্তব্যের পর রাষ্ট্রীয় বার্মিজ টিভি যারা আইন ভঙ্গ করছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে খবর প্রচার করে।

মঙ্গলবার বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে পুলিশের অ্যাকশনের বিষয়ে আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, রাজধানী নেপিদোতে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ ফাঁকা গুলি ছুড়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়, পুলিশ আকাশে ফাঁকা গুলি করার পর বিক্ষোভকারী জনতা ছোটাছুটি শুরু করে।

গত ১ ফেব্রুয়ারি ভোরে মিয়ানমারের ন্যাশনাল ডেমোক্র্যাটিক লীগের নেতা অং সান সু চি সহ ক্ষমতাসীন দলের বেশ কয়েকজন নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর সেনাবাহিনী আনুষ্ঠানিক সামরিক অভ্যুত্থানের ঘোষণা দেয় এবং এক বছরের জন্য জরুরী অবস্থা জারি করে। অভ্যুত্থানের পর থেকে মিয়ানমারের সাধারণ জনতা সু চিসহ অন্যান্য নেতাদের মুক্তির দাবিতে রাজপথে বিক্ষোভ করছেন।

Development by: webnewsdesign.com