ব্রেকিং

x

বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের ঠাঁই হবে না: ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী

মঙ্গলবার, ২৩ মার্চ ২০২১ | ৮:২৯ অপরাহ্ণ |

বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের ঠাঁই হবে না: ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী
সংগৃহীত ছবি

বিভিন্ন রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন ঘিরে আবারও উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে ভারতের অভ্যন্তরীণ রাজনীতি। অবৈধ অভিবাসীদের নিয়ে দেশটির সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ের মন্ত্রী ও কর্মকর্তারা প্রায়ই বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য করেন। এবার সেই একই পথে হেঁটে আসাম প্রদেশের রাজনীতিতে উত্তাপ ছড়ালেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।

মঙ্গলবার আসামে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) এক নির্বাচনী সমাবেশে অংশ নিয়ে তিনি বলেন, আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে যদি বিজেপি জয়ী হয়, তাহলে বাংলাদেশের কোনও অনুপ্রবেশকারী আসামে ঠাঁই পাবেন না।

রাজনাথ সিং বলেন, অবৈধ অভিবাসী ইস্যুতে আমরা কাউকে রাজনীতি করতে দেবো না। আসামীয় সংস্কৃতি এবং পরিচয় রক্ষা করা হবে। আমাদের যদি কোনও ধরনের খারাপ অভিপ্রায় থাকতো, তাহলে আমরা ডা. ভূপেন হাজারিকাকে ভারত রত্ম খেতাবে ভূষিত করতাম না।

ভারতের কেন্দ্রীয় এই মন্ত্রী বলেন, প্রতিবেশি দেশ থেকে আসামে অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বিজেপি সরকার ইতোমধ্যে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে ইলেক্ট্রনিক নজরদারি ব্যবস্থা বসিয়েছে।

রাজ্যে অকাল বন্যার বিষয়ে ভারতের এই প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, বিজেপি সরকার আরেকবার নির্বাচিত হলে সম্ভাব্য সব ধরনের সমস্যার সমাধান করবে। রাজ্যের বিরোধী দলগুলো বলছে, আগামী নির্বাচনে জল ঘোলা করার জন্য অভিবাসী ইস্যুকে সামনে আনার চেষ্টা করছে বিজেপি।

ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় এই রাজ্যে ২০১৯ সালে জাতীয় নাগরিক পঞ্জিকা (এনআরসি) চালু করা হয়। নতুন এই আইন কার্যকর করার ফলে রাজ্যের প্রায় ২০ লাখ মানুষ দেশটির নাগরিকত্ব হারান; যা আসামের পরিস্থিতিকে উত্তপ্ত করে তোলে।

শুধুমাত্র মুসলিম বাঙালিদের নাগরিকত্ব বাতিল করার লক্ষ্যে এই আইন কার্যকর করা হয়নি। কারণ রাজ্যে বসবাসরত অনেক বাঙালি হিন্দুও জাতীয় নাগরিক পঞ্জিকা থেকে বাদ পড়েন। ফলে তারা দেশটিতে অবৈধ অভিবাসী হওয়ার ঝুঁকিতে পড়ে যান। পরে এই আইনের বিরোধিতায় আসামে শুরু হওয়া বিক্ষোভ-সহিংসতা পশ্চিমবঙ্গসহ দেশটির অন্যান্য রাজ্যেও ছড়িয়ে পড়ে।

Development by: webnewsdesign.com