ব্রেকিং

x

বিদ্যুৎ খাতের ২ কোম্পানির মুনাফা সর্বোচ্চ রেকর্ড

মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮ | ১১:২২ অপরাহ্ণ |

বিদ্যুৎ খাতের ২ কোম্পানির মুনাফা সর্বোচ্চ রেকর্ড

বিদ্যুৎ উৎপাদন ও বিপনন খাতে পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত ৮ কোম্পানির মধ্যে চলতি অর্থবছরের প্রথম নয় মাসে ৫ কোম্পানির মুনাফা বেড়েছে, ২ কোম্পানির মুনাফা কমেছে এবং ১ কোম্পানির মুনাফা আগের বছরের সমপরিমাণ রয়েছে। মুনাফা বৃদ্ধির কোম্পানিগুলোর মধ্যে ২ কোম্পানির মুনাফা পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির পর সর্বোচ্চ রেকর্ড গড়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
সূত্রমতে, চলতি অর্থবছরের প্রথম নয় মাসে (জুলাই ২০১৭ থেকে মার্চ ২০১৮) যে ৫ কোম্পানির মুনাফা বৃদ্ধি পেয়েছে, সেগুলো হলো-ডরিন পাওয়ার, কেপিসিএল, পাওয়ারগ্রীড, সামিট পাওয়ার ও ইউনাইটেড পাওয়ার লিমিটেড। অন্যদিকে, বারাকা পাওয়ার ও শাহাজিবাজার পাওয়ারের মুনাফা কমেছে। আর ডেসকোর মুনাফা গত অর্থবছরের সমপরিমাণ রয়েছে।
এদিকে, মুনাফা বৃদ্ধি পাওয়া ৫ কোম্পানির মধ্যে যে ২ কোম্পানি পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্তির পর সর্বোচ্চ রেকর্ড মুনাফা করেছে, সেগুলো হলো-ডরিন পাওয়ার ও ইউনাইটেড পাওয়ার।
ডরিন পাওয়ার জেনারেশনস এন্ড সিষ্টেমস লিমিটেড ২০১৬ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। তালিকাভূক্তির পর ২০১৬-১৭ অর্থবছরের চার প্রান্তিকে এবং চলতি অর্থবছরের তিন প্রান্তিকে কোম্পানিটির মুনাফায় অব্যাহত প্রবৃদ্ধি দেখা যায়। তালিকাভূক্তির পর এ যাবত কোন প্রান্তিকেই কোম্পানিটির মুনাফায় নেতিবাচক প্রবণতা দেখা যায় না। চলতি অর্থবছরের তিন প্রান্তিকে (নয় মাসে) কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি মুনাফা করেছে ৬.০৯ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি মুনাফা ছিল ৫.১৭ টাকা। এ সময়ে মুনাফার প্রবৃদ্ধি দেয়া যায় ১৭.৭৯ শতাংশ। এটি কোম্পানিটির এ যাবতকালের মধ্যে সর্বোচ্চ রেকর্ড মুনাফা। উল্লেখ্য, ডরিন পাওয়ার বিদ্যুৎ খাতের কোম্পানিগুলোর মধ্যে সর্বনিম্ন মূলধনী কোম্পানি।
অন্যদিকে, ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন এন্ড ডিষ্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড ২০১৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। তালিকাভূক্তির পর ২০১৬-১৭ অর্থবছরের চার প্রান্তিকে এবং চলতি অর্থবছরের তিন প্রান্তিকে কোম্পানিটির মুনাফায় অব্যাহত প্রবৃদ্ধি দেখা যায়। চলতি অর্থবছরের তিন প্রান্তিকে (নয় মাসে) কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি মুনাফা করেছে ৮.৪১ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি মুনাফা ছিল ৮.০৫ টাকা। মুনাফা প্রবৃদ্ধি দেয়া যায় ৪.৪৭ শতাংশ। পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্তির পর এটি কোম্পানির সর্বোচ্চ মুনাফা।
মুনাফা অর্জনের ক্ষেত্রে কোম্পানি দুটির সর্বোচ্চ রেকর্ড গড়ার বিষয়ে বিনিয়োগকারীরা বলছেন, কোম্পানি দুটি যদিও মুনাফায় সর্বোচ্চ রেকর্ড গড়েছে, কিন্তু শেয়ার দরে এর কোন প্রভাব চোখে পড়েনি। বাজারে পতন প্রবণতা অব্যাহত থাকার কারণে কোম্পানি ২টির মুনাফা অর্জনের বড় খবর থাকার পরও শেয়ারদর পতন প্রবণতাই রয়েছে। তবে কোম্পানিগুলোর শেয়ার নিয়ে তাঁরা বেশ আশাবাদী।
বিদ্যুৎ খাতের কোম্পানিগুলোর পরিশোধিত মূলধন (টাকায়) এবং চলতি অর্থবছরের নয় মাসে (জুলাই ২০১৭ থেকে মার্চ ২০১৮) শেয়ারপ্রতি আয়, আগের অর্থবছরের নয় মাসে শেয়ারপ্রতি আয় ও প্রবৃদ্ধি নিচে তুলে ধরা হলো:-

কোম্পানি পরিশোধিত মূলধন নয় মাসে আয় প্রবৃদ্ধি
২০১৭ ২০১৮
ইউনাইটেড পাওয়ার ৩৯৯ কোটি ২৪ লাখ ৮.০৫ ৮.৪১ ৪.৪৭%
ডরিন পাওয়ার ১০৫ কোটি ৬০ লাখ ৫.১৭ ৬.০৯ ১৭.৭৯%
কেপিসিএল ৩৬১ কোটি ২৯ লাখ ৩.৯১ ৩.৯৩ ০.৫১%
শাহজীবাজার পাওয়ার ১৬১ কোটি ২ লাখ ৪.৮৭ ৩.৮৬ (২০.৭৩%)
পাওয়ার গ্রীড ৪৬০ কোটি ৯২ লাখ ২.৪০ ৩.৫২ ৪৬.৬৬%
সামিট পাওয়ার ১০৬৭ কোটি ৮৮ লাখ ২.৭৪ ৩.৩৭ ২২.৯৯%
বারাকা পাওয়ার ২০০ কোটি ৬ লাখ ২.১৩ ১.৫১ (২৯.১০%)
ডেসকো ৩৯৭ কোটি ৫৭ লাখ ০.৯৪ ০.৯৪ ০০%

অর্থকাল /এসএ/খান

 

Development by: webnewsdesign.com