ব্রেকিং

x

বিশ্বকে সাড়ে ৫ কোটি ডোজ দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, পাচ্ছে বাংলাদেশও

মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১ | ৬:০৮ অপরাহ্ণ |

বিশ্বকে সাড়ে ৫ কোটি ডোজ দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, পাচ্ছে বাংলাদেশও
ছবি: সংগৃহীত

করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবিলায় ধুকতে থাকা বিশ্বের বিভিন্ন দেশকে নিজেদের কাছে মজুদ থাকা সাড়ে ৫ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন বিতরণের পরিকল্পনা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। হোয়াইট হাউজ বলছে, করোনা টিকার ন্যায্য বিতরণ নিশ্চিতে গঠিত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার উদ্যোগ কোভ্যাক্সের মাধ্যমে এসব টিকার ৭৫ শতাংশ যাবে লাতিন আমেরিকা, ক্যারিবীয় অঞ্চল, এশিয়া এবং আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ।

হোয়াইট হাউজের এই টিকা এশিয়ার যেসব দেশ পাবে সেই তালিকায় আছে বাংলাদেশও। কিছুদিন আগে করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবিলায় সহায়তার অংশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি ৮ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন বিতরণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এবার তার সেই প্রতিশ্রুতি পূরণে সাড়ে পাঁচ কোটি ডোজ টিকা বিতরণ করছে যুক্তরাষ্ট্র। চলতি মাসের শুরুর দিকে প্রতিশ্রুতির আড়াই কোটি ডোজ টিকা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বিতরণ শুরুর ঘোষণা দিয়েছিলেন জো বাইডেন।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস এবং এর বিভিন্ন প্রজাতির বিরুদ্ধে যেসব দেশ এখনও লড়ছে, সেসব দেশকে আরও বেশি ভ্যাকসিন সহায়তা দিতে যুক্তরাষ্ট্রের ওপর চাপ বাড়ছে। যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত ৩১ কোটির বেশি মানুষকে করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়া হয়েছে। ফলে হোয়াইট হাউজ এখন আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে ভ্যাকসিন সহায়তা বৃদ্ধির দিকে মনযোগ দিচ্ছে।

হোয়াইট হাউজ বলেছে, সাড়ে ৫ কোটি ডোজ টিকার মধ্যে ৪ কোটি ১০ লাখ ডোজ বিতরণ করা হবে কোভ্যাক্সের মাধ্যমে। এর মধ্যে প্রায় এক কোটি ৪০ লাখ ডোজ যাবে লাতিন আমেরিকা, ক্যারিবীয় অঞ্চলে। এছাড়া এক কোটি ৬০ লাখ ডোজ যাবে এশিয়া এবং অন্য ১ কোটি ডোজ যাবে আফ্রিকায়।

অন্য ২৫ শতাংশ অথবা এক কোটি ৪০ লাখ ডোজ টিকা কলম্বিয়া, আর্জেন্টিনা, ইরাক, ইউক্রেন, পশ্চিম তীর এবং গাজায় আঞ্চলিক অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে বিতরণ করা হবে। হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র জেন সাকি বলেছেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ভ্যাকসিন বিতরণে যুক্তরাষ্ট্রকে কিছু সমস্যারও মুখোমুখি হতে হচ্ছে।

তিনি বলেন, আমাদের কাছে বিশ্বকে দেওয়ার মতো পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন ডোজ আছে। কিন্তু এই টিকা পাঠানোর কাজটি এক ধরনের চ্যালেঞ্জ। ভ্যাকসিনের সুরক্ষা, ব্যবহার বিধি, সতর্কতামূলক বিষয়, নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় যথাযথভাবে সংরক্ষণ নিশ্চিত করতে হবে। একই সময়ে ভাষাগত প্রতিবন্ধকতাও জয় করতে হবে।

হোয়াইট হাউজের এই মুখপাত্র বলেছেন, এসব টিকা কোথায় যাচ্ছে সেবিষয়ে আমরা আজ ঘোষণা দিয়েছি। আমরা অব্যাহতভাবে টিকার ডোজ পৌঁছানো এবং পরিবহনের ঘোষণা দেব। যত দ্রুত সম্ভব আমরা এসব টিকা পৌঁছে দেওয়ার কাজ করতে উন্মুখ হয়ে আছি।

যুক্তরাষ্ট্র যে সাড়ে ৫ কোটি ডোজ টিকা বিতরণের পরিকল্পনা করেছে, তা ফাইজার, মডার্না এবং জনসন অ্যান্ড জনসনের কাছ থেকে পাওয়া। যদিও মার্কিন খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ) ব্রিটিশ ফার্মাসিউটিক্যালস জায়ান্ট অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনা টিকার ব্যবহারেও সবুজ সংকেত দিয়েছে।

স্বাস্থ্যসেবা কর্মী এবং অন্য যারা করোনাভাইরাসের সর্বাধিক ঝুঁকিতে আছেন— হোয়াইট হাউজ এসব টিকা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে তাদের দিতে চায়। আন্তর্জাতিক সহযোগীরাও যুক্তরাষ্ট্রের এই সহায়তা নিতে আগ্রহী রয়েছে।

বণ্টন হবে যেভাবে

♦ কোভ্যাক্সের মাধ্যমে

• লাতিন আমেরিকা এবং ক্যারিবীয় অঞ্চ (প্রায় ১ কোটি ৪০ লাখ ডোজ পাবে): ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, কলম্বিয়া, পেরু, ইকুয়েডর, প্যারাগুয়ে, বলিভিয়া, উরুগুয়ে, গুয়েতেমালা, এল সালভাদর, হণ্ডুরাস, হাইতি এবং অন্যান্য ক্যারিবীয় দেশ, ডোমিনিকান রিপাবলিক, পানামা এবং কোস্টারিকা।

• এশিয়া (প্রায় ১ কোটি ৬০ লাখ ডোজ পাবে): ভারত, নেপাল, বাংলাদেশ, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তান, মালদ্বীপ, ভুটান, ফিলিপাইন, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, লাওস, পাপুয়া নিউ গিনি, তাইওয়ান, কম্বোডিয়া এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জ।

• আফ্রিকা (প্রায় ১ কোটি ডোজ পাবে): আফ্রিকান ইউনিয়নের সঙ্গে সমন্বয় করে এই অঞ্চলের দেশগুলো বাছাই করা হবে।

♦ সরাসরি বিতরণ

• কলম্বিয়া, আর্জেন্টিনা, হাইতি, অন্যান্য ক্যারিবীয় দেশ, ডোমিনিকান রিপাবলিক, কোস্টারিকা, পানামা, আফগানিস্তান, বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ফিলিপাইন, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, নাইজেরিয়া, কেনিয়া, ঘানা, কেপ ভার্দে, মিসর, জর্ডান, ইরাক, ইয়েমেন, তিউনিসিয়া, ওমান, পশ্চিম তীর, গাজা, ইউক্রেন, কসোভো, জর্জিয়া, মোলদোভা এবং বসনিয়া।
সূত্র: রয়টার্স।

Development by: webnewsdesign.com