ব্রেকিং

x

রীতা আক্তার-এর গুচ্ছ কবিতা

বৃহস্পতিবার, ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ১১:১২ পূর্বাহ্ণ | 1236 বার

রীতা আক্তার-এর গুচ্ছ কবিতা

আষাঢ়ের কান্নায় ধুয়ে যাক
তবে আজ….
খুব বৃষ্টি ঝরুক।
আষাঢ়ের কান্নায় ধুয়ে যাক,
মফস্বলের ঐ ব্যস্ত রাস্তাটা।
শত শত ধূলোর আবরণ,
কত কষ্টের ঘামে ভেজা মাটি,
কখনও….
ঐ ঘিঞ্জি মোড়ের শেষ মাথায় দাঁড়িয়ে থাকা দোতলার মিনুদের বাড়ির ছাদ।
ভিজে যাক…….
আজ সব ভিজে যাক।
আষাঢ়ের কান্নায় নোনা চোখের জল ধুয়ে যাক,
ধুয়ে যাক এঁটেল মাটির পথ।
আষাঢ়ের পবিত্র কান্নায় আজ উদ্ভাসিত হোক পুরনো প্রকৃতির রূপ।
হাসি ফুটুক গ্রীষ্ম চাষির মুখে।
নেতিয়ে পড়া অপরাজিতায় ফুল ফুটুক,
আর….
হাসি ফুটুক তোমার ঠোঁটে।
——————–

অষ্টাদশীর চাঁদ
ষোড়শী হেঁটে চলেছে
এক অচেনা রাতকে সাথী করে।
চোখে তার নেমে এসেছে জোছনার জল।
কি রূপে তারে বারণ করি!
কি রূপে বোঝাই তারে,
মৌন হবার সময় তো নয় এখন।
ঐ সপ্তর্শীর দিকে চেয়ে দেখো,
কত আলো তার চারপাশে।
তুমি কেনো অমন করে ঝরাও দুঃখের নদী?
জেগে উঠো…
জেগে উঠো, প্রলয়ঙ্করী ঝড়ের মতো।
ধূলোয় মিলিয়ে দাও,
আছে যত ক্ষত মনে তোমার।
রাঙিয়ে দাও জগত,
আলো ছড়াও নিজের মতো করে।
তবেই তো তুমি
অষ্টাদশীর চাঁদ।
——————

অভিব্যক্তি
নৌকো যখন ভিড়বে সাঁঝের বেলায়
সূর্য তখন হাসবে নিরব রেখায়।
মৃদু ঢেউয়ে দুলবে আমার তরী,
সে তো কেবল তোমার সীমা রেখায়।
কিছু হাসি আনবো ওপার থেকে,
কষ্ট তোমার ভুলিয়ে দেবার আশায়।
কিছু কান্না কাঁদবো জড়িয়ে ধরে,
বন্ধু ওগো রেখো বুকের খাঁচায়।
কষ্ট গুলোর অশ্রু ধুয়ে সবে,
হাসবো আমি তোমার বুকের পরে।
তোমার হাসি অটুট রাখবো ওগো,
দেখো বন্ধু যাবনা তোমায় ফেলে।
যদি তুমি করো মোরে হেলা,
দেখবে বন্ধু, হারাবো সাঁঝের বেলা।
তখন আমার পাবেনা খুঁজে আর,
শূণ্য বুকে যাবো পরপার।
তখন তুমি খুঁজবে আমায় খুব,
কষ্ট পেয়ে কাঁদবে কোন কালে,
তখন আমায় পাবে না তুমি কাছে।
বুঝবে…….
কি ছিলাম তোমার কাছে!
———————

শেষ চিহ্ন
কিছুটা এগিয়ে গিয়েছিলাম
প্রাচীন রাস্তার পথ ধরে।
আনমনে একাকি নিঝুম দুপুরে,
গান গেয়ে চলছিলো অশান্ত শালিকের দল।
ঘোর লাগা চোখে সেদিন হেসেছিলাম আমি।
গত মূহুর্তে ঘটে যাওয়া ঘটনা,
স্মৃতি পটে করছিলো গাঢ় নিঃস্বসের ভালোবাসা।
ও নিঃস্বাসের ছোঁয়া যেনো আগামীর পূর্বাভাষ।
কিছু নিরবতা,
কিছু গাঢ় প্রেমের উক্তি,
সব যেনো মিশে রয়েছে আমার সত্তাজুড়ে।
একি কেবল তোমার প্রেম?
নাকি
স্মৃতি পটে আঁকা ভালোবাসার শেষ চিহ্ন?
——————

তুমি চাইলেই
তুমি চাইলেই হবো আমি
মেঘে ঢাকা চাঁদ।
তুমি চাইলেই হবো আমি
বিনিদ্র এক রাত।
তুমি চাইলেই দূর প্রান্তে
হবো নীলাকাশ।
তুমি চাইলেই শরতের মেঘে,
ভাসাবো য়ত স্বাধ।
তুমি চাইলেই উড়ে যাবো,
শুভ্র কাশের দেশে।
তুমি চাইলেই সাজবো আমি,
হেমন্তিকার বেশে।
তুমি চাইলেই কৃষানির ঘরে নবান্ন হয়ে রবো।
কৃষানির চোখে কাজল হয়ে কত কথা কবো।
তুমি চাইলেই জেনাকি হয়ে আলো ছড়াবো দিকে,
তুমি চাইলেই জোছনা হাসাবো,
পথ শিশুর মুখে।
তুমি চাইলেই চূড়ি হবো,
কিশোরীর কচি হাতে।
তুমি চাইলেই ভালোবাসা হবো,
দুঃখি পৃথিবীর প্রাতে।
————————

রামপুরা, ঢাকা।

Development by: webnewsdesign.com