ব্রেকিং

x

২৬ বারের মত এভারেস্ট জয়ের বিশ্ব রেকর্ড নেপালি পর্বতারোহী কামি রিতা শেরপার

সোমবার, ০৯ মে ২০২২ | ৯:৪০ অপরাহ্ণ |

২৬ বারের মত এভারেস্ট জয়ের বিশ্ব রেকর্ড নেপালি পর্বতারোহী কামি রিতা শেরপার
সংগৃহীত ছবি

মাউন্ট এভারেস্টের শৃঙ্গ জয় করে আসছেন বহু অভিযাত্রী। তবে, দুর্গম এই পথে তাদের সবার সাথে ছিলেন দক্ষ শেরপারা। পৃথিবীর সর্বোচ্চ শৃঙ্গ মাউন্ট এভারেস্ট ২৬ বারের মত আরোহণ করে নতুন বিশ্ব রেকর্ড গড়েছেন নেপালি পর্বতারোহী কামি রিতা শেরপা।

নিজের তৈরি করা রেকর্ড চতুর্থ বারের মতো ভাঙলেন তিনি। নেপাল সরকারের পক্ষ থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে এই তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। শহরের গলিপথের মতোই পাহাড়ের শৃঙ্গে যাওয়ার রাস্তা থাকে নখ দর্পণে থাকে শেরপারদের কাছে। এমনই একজন কামি রিতা শেরপা।

একবার, দু’বার বা ১০ বার নয়, ২৬ বারের মতো পৃথিবীর সর্বোচ্চ শৃঙ্গ মাউন্ট এভারেস্ট জয় করে রেকর্ড করেছেন নেপালি পর্বতারোহী কামি রিতা শেরপা।

মে মাসের শুরুতে ৫২ বছর বয়সী কামি রিতা শেরপা আরও ১০ জন শেরপার সঙ্গে এভারেস্টের দক্ষিণ-পূর্ব শৈলশিরা ধরে ২৯ হাজার ৩১ ফুটের এ পর্বত চূড়ায় আরোহণ করেন। গত ৩ বছরের মত এবারো নিজের রেকর্ড নিজেই ভেঙেছেন তিনি।

নেপালের সলু থুম্বু জেলার থামে গ্রামে বেড়ে ওঠা কামি রিতা শেরপা ১৯৯৪ সালে প্রথমবার এভারেস্ট জয় করেন। এর পর থেকে প্রায় প্রতি বছরেই তিনি এভারেস্ট জয় করে ফিরে আসছেন। কামির বাবাও ছিলেন একজন সুদক্ষ শেরপা।

১৯৯৪ থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত মৌসুম ছাড়াও বৈরী আবহাওয়াতেও এভারস্টে চূড়ায় গিয়েছেন রিতা শেরপা। ২০১৫ সালে একবার তুষার ঝড়ের কবলে পড়েছিলেন রিতা। ঐ বার তিনি বেঁচে গেলেও মারা যান ১৯ জন সহ অভিযাত্রী। এভারেস্টের পাশাপাশি পৃথিবীর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পর্বত কে-টু, চো-ওইউ, মানাসলু ও লোতসে পর্বতও জয় করেছেন রিতা।

কামির অভিযোগ অভিযাত্রী পাহাড়ের শীর্ষে পৌঁছে নিজের দেশের পতাকা পুঁতে দেন মাটিতে। তবে সে অর্থে যোগ্য সম্মান পান না শেরপারা। কামি জানান, পাহাড়ে চড়া তার কাছে নেশার মতো। তাই কোন কিছু পাওয়ার আশায় না, ভাল লাগা থেকেই তিনি এই কাজ করে যাচ্ছেন।

১৯৫৩ সালে ইতিহাসের প্রথম ব্যক্তি হিসেবে এভারেস্ট জয় করেছিলেন নেপালের কিংবদন্তি শেরপা তেনজিং নোরগে এবং নিউজিল্যান্ডের স্যার এডমন্ড হিলারি।

এ বছর নেপাল ৩১৬ জনকে এভারেস্টে চড়ার অনুমতি দিয়েছে। চলতি মে মাসেই কেবল তারা এভারেস্টে আরোহণ করতে পারবেন। গত বছর সর্বোচ্চ ৪০৮ জনকে এভারেস্টে চড়ার অনুমোদন দিয়েছিল দেশটির কর্তৃপক্ষ।

হিমালয়ের দেশ নেপাল বৈদেশিক মুদ্রার জন্য ব্যাপকভাবে পর্বতারোহীদের ওপর নির্ভরশীল। তবে ২০১৯ সালে এভারেস্টে পর্বতারোহীদের ভিড় এবং বেশ কয়েকজন পর্বতারোহীর মৃত্যুর ঘটনায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ে দেশটি।

১৯৫৩ সালে নেপাল ও তিব্বতের দিক দিয়ে প্রথম জয়ের পর এ পর্যন্ত ১০ হাজার ৬৫৭ বার এভারেস্টে আরোহণ করেছেন পর্বতারোহীরা।

হিমালয়ান ডেটাবেস অনুসারে, অনেক পর্বতারোহী একাধিকবার এভারেস্ট জয় করেছেন এবং এখন পর্যন্ত ৩১১ পর্বতারোহী মৃত্যুবরণ করেছেন।

Development by: webnewsdesign.com