ব্রেকিং

x

নানা সমস্যায় রয়েছে দেশের শিপিং খাত

সোমবার, ২১ নভেম্বর ২০২২ | ৫:১৫ অপরাহ্ণ |

নানা সমস্যায় রয়েছে দেশের শিপিং খাত
সংগৃহীত ছবি

নানা সমস্যায় রয়েছে দেশের শিপিং খাত। শিপিং এজেন্টরা বিদেশি শিপিং কোম্পানিগুলোর কাছে তাদের পাওনা না পাঠাতে পারায় দেশের বৈদেশিক বাণিজ্য হুমকির মুখে পড়েছে। ডলার সংকটের কারণে এ পাওনা পাঠানো যাচ্ছে না। এ ছাড়া শিপিং ব্যবসা করতে চাইলেও অনেকে গত দুই বছর ধরে লাইসেন্স পাচ্ছেন না। সংশ্নিষ্ট ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে গেলেও নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষ অনেক ক্ষেত্রেই কোনো সাড়া দিচ্ছে না।

রোববার দৈনিক ইত্তেফাকের আয়োজনে ‘বাংলাদেশের শিপিং খাত: বাস্তবতা ও করণীয়’ শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা এসব কথা বলেন। জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতি সচল আছে। বিদেশিরা বিনিয়োগ করতে আসছেন। আমাদের ব্যবসায়ীরা বিদেশে বিনিয়োগ করছেন। ভয় পাওয়ার কিছু নেই।

আলোচনায় চট্টগ্রাম বন্দরের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহান বলেন, চট্টগ্রাম বন্দর বর্তমান সক্ষমতায় আঞ্চলিক ট্রান্সশিপমেন্ট সেবা প্রদানে সম্পূর্ণ প্রস্তুত।

মূল প্রবন্ধে বাংলাদেশ শিপিং এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল আলী শিমুল বলেন, মেইন লাইন অপারেটরদের নির্দিষ্ট হারে অর্থ পাঠাতে হয়। কিন্তু ডলার সংকটের কারণে বেশ কিছুদিন তা পাঠানো যাচ্ছে না। বিভিন্ন শিপিং লাইনের ১৫ কোটি ডলারের বেশি রেমিট্যান্স মুলতবি থাকায় ব্যবসায়িক সম্পর্ক বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। কিন্তু এ অর্থ পাঠাতে না পারলে সাপ্লাই চেইন প্রক্রিয়া ভেঙে পড়বে।

বাংলাদেশ শিপিং এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ মোহাম্মদ আরিফ বলেন, শিপিং ব্যবসা করতে চাইলেও অনেকে গত দুই বছর লাইসেন্স পাচ্ছেন না। বাংলাদেশ ফ্রেইট ফরোয়াডার্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট কবির আহমেদ বলেন, বিভিন্ন সমস্যার কথা জানালেও নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষ কোনোভাবেই সাড়া দেয় না। কথায় কথায় তারা লাইসেন্স নিয়ে টানাটানি করে।

বিকেএমইএর নির্বাহী সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম বলেন, আমরা ২০৩০ সালের মধ্যে রপ্তানি ১০০ বিলিয়ন ডলারে নিতে চাই। এ জন্য কনটেইনার টার্মিনালের সক্ষমতা বাড়াতে হবে।

চট্টগ্রাম চেম্বারের সাবেক পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ বলেন, অনেক পুরোনো আইনে চলছে শিপিং খাত। এর সংস্কার করতে হবে।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো. আইনুল ইসলাম, বাংলাদেশ ইনল্যান্ড কনটেইনার ডিপো অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নূরুল কাইয়ুম খান, গ্লোবাল টিভির সিইও এবং এডিটর ইন চিফ সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা, একাত্তর টিভির হেড অব বিজনেস কাজী আজিজুল ইসলাম প্রমুখ।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন দৈনিক ইত্তেফাকের বিশেষ প্রতিনিধি সাইদুল ইসলাম। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন দৈনিক ইত্তেফাকের কূটনৈতিক সম্পাদক মাঈনুল আলম।

Development by: webnewsdesign.com